এপেনডিসাইটিসের কারণ ও লক্ষণ

এপেনডিসাইটিস মানে এপেনডিকস নামক ক্ষুদ্র অঙ্গটির প্রদাহএই এপেনডিকস অঙ্গটি পেটের নাভির ডান দিকে অবস্খিতএটি দেখতে অনেকটা ওয়ার্ম বা কৃমির মতো এবং এটি খাদ্যনালীর বৃহদন্ত্রের অংশরোগপ্রতিরোধে এর ভূমিকা আছে বলে ধারণা করা হয়তবে এই অঙ্গহানির ফলে শরীরের কোনো ক্ষতি হয় নাএপেনডিসাইটিস কেন হয়  

বিভিন্ন কারণে এপেনডিসাইটিস হতে পারে, যেমন­  

১. ফিকুলিথ (শক্ত মলের নুড়ি) দ্বারা এপেনডিকসের প্রবেশমুখ বìধ হয়ে২. হজম না হওয়া খাদ্যের অংশ যেমন টমেটোর খোসা দ্বারা এপেনডিকসের প্রবেশমুখ বìধ হয়ে৩. গুঁড়া কৃমির দ্বারা এবং ভাইরাস বা ব্যাক্টেরিয়াল ইনফেকশন হয়ে এপেনডিসাইটিস হতে পারে 

এপেনডিসাইটিস রোগের লক্ষণসমূহ  

১. রোগী বলবে প্রথমে আমার ব্যথা নাভীর চারপাশে অথবা পেটের উপরিভাগে শুরু হয়েছিল এবং ২-৩ ঘন্টা পর এ ব্যাথা সরে এসে নাভির ডান পাশে অবস্খান নিয়েছে২. হাঁচি-কাশি দিলে নাভির ডান পাশে ব্যথা হয়৩. বমিভাব বা দু-একবার বমি হতে পারে৪. ক্ষুধা নেই৫. হালকা জ্বর ভাব৬. কনস্টিপেনশন এবং কিছু ক্ষেত্রে ডায়রিয়াও হতে পারে৭. পরীক্ষা করলে নাভির ডান দিকে চাপ দিলে ব্যথা অনুভব করবে বা ব্যথার জন্য ধরাই যাবে না 

রোগীর ইতিহাস ও লক্ষণগুলো থেকেই ৯০ ভাগ ক্ষেত্রে এই রোগ নিরূপণ করা হয়সেই সাথে রক্ত, প্রস্রাব, এক্স-রে ও আলট্রাসনোগ্রাম (মেয়েদের ক্ষেত্রে) করে পেট ব্যথার অন্য কারণগুলো বাদ দিয়ে এপেনডিসাইটিস রোগ ডায়াগনোসিস কনফার্ম করা হয় 

মেয়েদের ক্ষেত্রে এ রোগ নির্ণয় ছেলেদের তুলনায় কঠিন হয়কারণ নাভির ডানপাশে ব্যথা মেয়েলি কারণেও হতে পারে যেমন ওভুলেশন পেইন, ডিম্বাশয়ের কারণে ব্যথা, টিউবাল প্রেগনেন্সির (জরায়ুর বাইরে গর্ভধারণ) জটিলতার কারণে ও প্রস্রাবে ইনফেকশন ইত্যাদির কারণে ব্যথাএসব ক্ষেত্রে অবশ্যই রোগিনীর ভালোভাবে পূর্ব ইতিহাস ও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে নিতে হবেপ্রয়োজন হলে লেপারো-স্কোপিক পদ্ধতির সাহায্য নিতে হবে 

চিকিৎসা  

দ্রুত অপারেশনই এ রোগের সঠিক চিকিৎসা অপারেশন না করলে কী ক্ষতি হতে পারে? ১. চাকা (লাম্প) হয়ে যেতে পারেযা কিনা ভালো হতে ২-৩ সপ্তাহ লেগে যায় এবং খরচও অপারেশনের চেয়ে বেশি হয়২. ফোঁড়া হয়ে যেতে পারে৩. গ্যাংগ্রিন, ফুটো বা ব্লাস্ট হয়ে যেতে পারে এবং জীবন-মরণ সমস্যা দেখা দিতে পারে৪. ভালো হয়ে আবার বারবার দেখা দিতে পারে 

অতএব ওপরের জটিলতাগুলো চিন্তা করে যত দ্রুত সম্ভব অপারেশন করে নেয়াই বুদ্ধিমানের কাজ 

ডা. এম এ হাসেম ভূঁঞালেখক : জেনারেল ও কলোরেক্টাল সার্জন, সহযোগী অধ্যাপক, সার্জারি, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালমোবাইল : ০১৭১১৫৩৩৩৭৩ 

দৈনিক নয়া দিগন্ত, বৃহস্পতিবার, ২৬ এপ্রিল ২০০৭, ১৩ বৈশাখ ১৪১৪, ৮ রবিউস সানি ১৪২৮

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s