ঢাবি লাইব্রেরীতে সুযোগ সুবিধা অপ্রতুল অনেক শিক্ষক দেরিতে বই ফেরৎ দেন

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় লাইব্রেরীতে প্রয়োজনীয় অপ্রতুল সুযোগ-সুবিধার কারণে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা বিপাকে পড়েছেনসংশ্লিষ্ট কতৃৃপক্ষ বলেছেন, বরাদ্দকৃত অর্থের পরিমাণ কমতাই প্রয়োজনীয় সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধি করা যাচ্ছে না 

লাইব্রেরীতে বইয়ের সংকট দীর্ঘদিনেরপ্রতি বছর ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা যে হারে বাড়ছে, বইয়ের সংখ্যা সে হারে বাড়ছে নাবইয়ের নতুন নতুন সংস্করণের ফলে পুরনো বইগুলো পাঠের অযোগ্য হয়ে পড়েছেবিশ্ববিদ্যালয়ের লাইব্রেরীতে বর্তমানে ৬ লক্ষাধিক বই এবং ৩০ হাজার দুর্লভ পাণ্ডুলিপি রয়েছেতবে এর অর্ধেকের বেশী পাঠযোগ্য নয়কারণ হিসেবে শিক্ষার্থীরা বলেছেন, বইয়ের নতুন নতুন সংস্করণের ফলে পুরানো বইগুলো ছাত্র-ছাত্রীদের কাজে আসে নাআগে যে বইয়ের ১০/১৫টি কপি ছিল বর্তমানে তার সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২/৩ টিতেকোন কোনটির তালিকা ক্যাটালগে থাকলেও লাইব্রেরীতে কোন কপিই নেইআবার কতিপয় শিক্ষার্থী অনেক বইয়ের পাতা কেটে নিয়েছেএ প্রবণতা এখনও রয়েছেবিশ্ববিদ্যালয়ের লাইব্রেরী থেকে শিক্ষকরা কার্ডে ইস্যু করে কোন বই এক মাসের জন্য নিতে পারেনকিন্তু অনেক শিক্ষক রয়েছেন যারা বই নিয়ে মাসের পর মাস রেখে দেনএব্যাপারে লাইব্রেরী কর্তৃপক্ষের বক্তব্য, প্রতি বছর বইয়ের দাম বাড়ছে; কিন্তু লাইব্রেরীর বাজেট বাড়ছে নাএখানে ছাত্র-ছাত্রীদের পড়ার জন্য বর্তমানে ৫শ৬০টি সিট রয়েছেছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় এক্ষেত্রে সংকটের সৃষ্টি হয়েছেবর্তমানে শিক্ষার্থীদের বড় সমস্যার কারণ কেন্দ্রীয় লাইব্রেরীর অধিকাংশ এসি নষ্টতবে বর্তমান লাইব্রেরীয়ান বলেছেন, নিয়মিত এসি চালু থাকেমাঝে মধ্যে দুএকটি অকেজো হয়ে যায়শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, জেনারেটরের কোন ব্যবস্থা না থাকায় বিদ্যুৎ চলে গেলে ছাত্র-ছাত্রীরা লাইব্রেরী থেকে বের হয়ে আসতে বাধ্য হয়লাইব্রেরীর চেকিংয়ের বিষয়টি এখনও যথাযথ না হওয়ায় লাইব্রেরীতে অনেক বহিরাগত ছাত্র দেখা যায়এছাড়া এক শ্রেণীর আড্ডাবাজদের কারণে লাইব্রেরীর পড়ালেখার পরিবেশ নষ্ট হচ্ছেঅনেক দুর্লভ মূল্যবান বই, পাণ্ডুলিপি লাইব্রেরীতে এখন আর খুঁজে পাওয়া যায় না বলে অনেক ছাত্র-ছাত্রীর অভিযোগতবে লাইব্রেরী কর্তৃপক্ষ বলেছেন, সব পণ্ডুলিপি রয়েছে 

আধুনিক তথ্য প্রবাহের যুগে কম্পিউটার এবং ইন্টারনেট ব্যবস্থা যতটুকু থাকার কথা তা নেই কেন্দ্রীয় লাইব্রেরীতেএখানে ছাত্র-ছাত্রীদের ব্যবহারের জন্য রয়েছে মাত্র ৪টি কম্পিউটারএর মধ্যে দুটি ক্যাটালগ দেখার জন্য এবং দুটি ইন্টারনেট ব্যবহারের জন্যএকজন শিক্ষার্থী মাত্র ২০ মিনিট ইন্টারনেট ব্যবহারের সুযোগ পায়লাইব্রেরীর সমস্যা সম্পর্কে ভারপ্রাপ্ত লাইব্রেরিয়ান খন্দকার বজলুর রহমান বলেন, বাজেট পর্যাপ্ত না হওয়ায় ইচ্ছা থাকলেও সুযোগ-সুবিধা বাড়ানো সম্ভব হচ্ছে নাতিনি বলেন, কোন মূল্যবান পাণ্ডুলিপি লাইব্রেরী থেকে খোয়া যায়নিমে মাস থেকে শিক্ষার্থীদের জন্য ইন্টারনেট সুবিধা বাড়ানোর কথা জানান তিনি 

।। মিজানুর রহমান ।। দৈনিক ইত্তেফাক, মে ০৩, ২০০৭, বৃহস্পতিবার : বৈশাখ ২০, ১৪১৪

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s